বিকাশ লোন | বিকাশ লোন কিভাবে নিবো [জেনে নিন এখানে]

বিকাশ লোন : আমরা জানি বিকাশ একটি নতুন ফিচারের আওতাধীন সিটি ব্যাংক এর সাথে একত্রীভূত করে চালু করা হয়েছে দেশের প্রথম ডিজিটাল ঋণ বিতরণ সেবা। বিকাশ লোনের এ যাত্রা টি গত 2021 খ্রিস্টাব্দে আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হয়েছে।

এর আগেও এটিতে লোন পাওয়া যেত কিন্তু স্বল্প পরিমাণ এর সর্বোচ্চ 10 হাজার টাকা ডিজিটাল লোন। বর্তমানে বিকাশের হচ্ছে সর্বোচ্চ 20,000 টাকা।

বাংলাদেশের বেসরকারি ব্যাংক সিটি ব্যাংকের জামানতবিহীন বিকাশ একাউন্টে পাওয়া যাবে যেকোনো সময়। আপনার যদি টাকা প্রয়োজন হয় তাহলে আপনি বিকাশ থেকে যে কোন সময় লোন করতে পারবেন কোন প্রকার জামানত ছাড়াই।

আমরা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান দেখতে পাই যারা লোন প্রদান করে থাকে তারা ঋণ নেওয়ার আগে সঞ্চয় জমা করা দেখান এবং জমি জমার কাগজপত্র জামানত হিসেবে রেখে দেয় কিন্তু বিকাশ কোম্পানি লোন দেওয়ার সময় আপনার কাছে কোন ডকুমেন্ট চাইবে না।

এমন একটি বিষয় যেখানে কোন ডকুমেন্ট এর প্রয়োজন হয় না আপনার যখন ইচ্ছা তখন লোন নিতে পারবেন। আপনি যদি বিকাশ থেকে লোন নিতে চান তবে আপনাকে জানতে হবে বিকাশ লোন কি ? বিকাশ লোন সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে আমাদের এলাকাগুলো শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

বিকাশ লোন | বিকাশ লোন কিভাবে নিবো [জেনে নিন এখানে]
বিকাশ লোন | বিকাশ লোন কিভাবে নিবো [জেনে নিন এখানে]

বিকাশ লোন কি?

আমরা সকলেই জানি বর্তমান সময়ে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে টাকা লেনদেন করার জন্য উপযুক্ত একটি মাধ্যম বিকাশ। যার মাধ্যমে আপনারা দেশে থাকে এবং দেশের বাইরে থেকে যে কোন জায়গায় টাকা পাঠাতে পারেন এবং টাকা তুলতে পারেন।

বর্তমানে বিকাশ একটি জনপ্রিয় মাধ্যম সৃষ্টি করেছে তা হচ্ছে বিকাশ লোন। আমরা জানি বিকাশ লোন বিকাশ থেকে দেয়া হয়ে থাকে কিন্তু সিটি ব্যাংক থেকে প্রদান করা হয়।

মূল কথা হচ্ছে সিটি ব্যাংক এর লোন টাকাগুলো বিকাশের মাধ্যমে তাদের ইউজারদের প্রদান করা হয় আপনি যদি বিকাশের একজন ইউসার হয়ে থাকেন তবে আপনিও বিকাশ লোন নিতে পারবেন।

বিকাশ লোন কত টাকা পাওয়া যায়

আপনি যদি বিকাশ লোন করতে চান তবে আপনাকে জানতে হবে বিকাশ কত টাকা লোন দিয়ে থাকে। আমরা আপনাকে আগেই বলেছি বিকাশ লোন সর্বোচ্চ 20,000 টাকা।

আপনি আপনার প্রয়োজন মত বিকাশ লোন করতে পারেন সেটা শুরু হতে পারে সর্বনিম্ন 500 টাকা থেকে সর্বোচ্চ 20 হাজার টাকা পর্যন্ত। বর্তমানে যেহেতু 20000 টাকায় সর্বোচ্চ বিকাশ লোন কিন্তু এটি ধীরে ধীরে আরও বেশি টাকায় পরিণত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে বিকাশ লোন যদি স্বরবর্ণ 500 টাকা থেকে শুরু হয়েছে টাকা পর্যন্ত হয় তাহলে এই লোনের সুদ কত। আপনার বিকাশ থেকে লোন নিতে চান তবে অনেক অল্প পরিমাণ এর সুদের বিনিময়ে লোন নিতে পারবেন বিকাশের অনুযায়ী 9 শতাংশ সুদের বিনিময়ে ডিজিটাল ঋণ বিতরণ করা হয়।

বিকাশ লোন গ্রহণ এর শর্ত কি ?

আমরা জানি বিকাশ লোন সিটি ব্যাংকের আওতাধীন। সিটি ব্যাংক এবং বিকাশের ডিজিটাল ঋণ প্রদান সেবা সবচেয়ে লাভজনক ব্যাপার হলো উপযুক্ত বিকাশের যে কোনো গ্রাহক বিকাশ অ্যাপ থেকে যেকোনো সময় যেকোনো স্থানে বসে বিকাশ লোন গ্রহণ করতে পারবেন।

আমরা আপনাকে আগেই জানিয়েছে যে বিকাশ থেকে সর্বোচ্চ গ্রাহকরা কোন প্রকার ঝামেলা ছাড়াই 20000 টাকা ঋণ গ্রহণ করতে পারবেন তবে শুধুমাত্র বাছাইকৃত বিকাশ গ্রাহকরা হবেন।

বিকাশের সকল ইউজাররা গ্রহণ করতে পারবেন না। উক্ত বিকাশ লোন টি একটি লটারির মতো, কারণ এখানে লক্ষ লক্ষ বিকাশ রয়েছে সবাইকে তো আর লুণ্ঠন করা সম্ভব না তার জন্য যারা বিকাশ লোন নেওয়ার জন্য আবেদন করে থাকেন সেখান থেকে লটারি সিস্টেম করা হয় যাদের নাম হচ্ছে তাদেরকে লোন প্রদান করা হয়।

বিকাশ লোন কিভাবে নিবো ?

বর্তমানে বিকাশের আনুষ্ঠানিকভাবে পালিত হচ্ছে ডিজিটাল সেবা কার্যক্রম। বিকাশের সকল ইউজার রা তাদের বিকাশ অ্যাপ এ রুন অপশন দেখতে পাবেন কিন্তু সবাই লোন গ্রহণ করতে পারবেন না বিকাশ ও সিটি ব্যাংক কর্তৃপক্ষ যাচাই-বাছাই করে নুনের পরিমাণ নির্ধারণ করবেন।

আমি আগেই বলেছি বিকাশের জন্য আপনার লটারির মতো না উঠতে হবে। আপনি যদি বিকাশ লোন গ্রহণ করতে চান তবে আপনাকে অবশ্যই বিকাশ অ্যাপ এ নুন আইকন দেয়া হবে।

বিকাশ লোন নিতে গ্রাহককে তাকে বিকাশ লোন ফরম দেওয়া তথ্য সিটি ব্যাংকের দেওয়া সম্মতি দিতে হবে। তারপর নুনের পরিমাণ এবং নিজের পিন দিয়ে সাথে সাথেই বিকাশ একাউন্টে ডিজিটাল ঋণের টাকা পেয়ে যাবেন।

বিকাশ লোন এর সঙ্গে প্রযোজ্য সুদ ও অন্যান্য বিধি-বিধান বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী পরিচালিত হবে। আপনি যদি বিকাশ লোন পেতে চান তবে আপনাকে বিকাশ লোন আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে কিভাবে পূরণ করবেন তার জন্য নিচের অংশটি দেখুন।

  • বিকাশ লোন পাওয়ার জন্য আবেদন করতে আপনাকে প্রথমে বিকাশে প্রবেশ করতে হবে।
  • তারপর সেখানে তারপর সেখানে লোন অপশনে ক্লিক করতে হবে।
  • তারপর আপনাকে একটি পরবর্তী ধাপে নিয়ে যাওয়া হবে সেখানে লোন লেখাতে ক্লিক করতে হবে।
  • তারপর সেখানে লোনের পরিমাণ ও কিস্তির মেয়াদ সিলেক্ট করে এগিয়ে যেতে হবে।
  • বিকাশ থেকে কত টাকা লোন পাবেন ও কত টাকা পরিশোধ করতে হবে তা সেখানে দেখতে পারবেন তারপর এগিয়ে যেতে পরবর্তী তে ক্লিক করুন।
  • তারপর উনার নির্দেশনা ও নিয়মাবলী পড়ার পর সম্মতি অপশনে ক্লিক করুন, তারপর আপনার প্রাপ্য লোন কনফার্ম করতে আপনার বিকাশ একাউন্টের পিন প্রদান করুন।
  • লোন পাওয়ার জন্য লোন অপশনটি চাপ দিয়ে ধরে রাখুন।
  • আপনি যদি উক্ত যাবতীয় তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করতে পারেন তবে আপনি বিকাশ লোন গ্রহণ করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ

বিকাশ লোন পরিশোধের নিয়ম কী?

আপনি যদি উক্ত নিয়ম অনুযায়ী বিকাশ লোন আবেদন করতে পারেন তবে আপনি বিকাশ লোন পেয়ে যাবেন। আপনি যদি বিকাশ লোন পেয়ে যান তবে অবশ্যই কিস্তিতে কিস্তিতে পরিশোধ করতে হবে।

আপনি যখন আসবেন তখন লোন নেওয়ার পর পরবর্তী তিন মাসে একই পরিমাণ এর টাকা তিন কিস্তিতে গ্রাহকের বিকাশ একাউন্ট থেকে নির্ধারিত তারিখে স্বয়ংক্রিয়ভাবে পরিষদ হয়ে যাবে। বিকাশ লোন পরিশোধের তারিখের আগে এসএমএস এবং অ্যাপ এর মাধ্যমে নোটিফিকেশন পেয়ে যাবেন।

ঋণ পরিশোধ করছে কিনা তাও পর্যবেক্ষণ করা হবে পরবর্তী ঋণ প্রদানের ব্যাপারে বিবেচনা করা হবে। বিকাশ ও সিটি ব্যাংক-এনএ দিনের আগে নিজে নিজে পরিশোধ করে দিতে পারবেন যার ফলে সুদের খরচ কম হবে।

বিকাশ লোনের কিস্তি পরিশোধের নির্দিষ্ট তারিখে বিকাশ একাউন্টে প্রয়োজন পড়ে অনেক ব্যালেন্স না থাকলে অথবা নির্দিষ্ট তারিখে লোনের টাকা প্রদান করলে বিলম্ব ফি প্রযোজ্য হবে।

তার লোন নেয়ার পর আপনাকে সময় মতো তারিখ অনুযায়ী যথারীতি বিকাশ লোনের কিস্তি পরিশোধ করে যেতে হবে।

শেষ কথাঃ

বর্তমানে অনেক লোক বিকাশ থেকে লোন নেওয়ার আগে মন্তব্য করে থাকে যে, সুদ হারাম। তাহলে বিকাশ লোন নিয়ে নিজেদের সুদের সাথে জড়িত করবো কেন। আবার অনেকের মন্তব্য হয়ে থাকে তারা এখান থেকে দ্রুত যেকোনো সময় বিকাশ লোন গ্রহণ করতে পারবে অনেকে আগ্রহ করে ঋণ গ্রহণ করে থাকে।

আমরা আপনাকে একটি কথাই বলবো বিকাশ লোন নেওয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণ আপনার উপর নির্ভর করে। আপনার যদি লোনের অনেক প্রয়োজন হয় তবে আপনি বিকাশ থেকে নিঃসন্দেহে লোন নিতে পারবেন আর যদি ওদের সাথে নিজেকে জড়াতে না চান তবে ঋণ গ্রহণ না করা উত্তম।

আমাদের এই ছোট্ট আর্টিকেলে আপনাকে কিছুটা হলেও বোঝাতে পেরেছি যে বিকাশ লোন কত টাকা প্রদান করা থাকে এবং বিকাশ লোন কিভাবে নিতে হয় এবং বিকাশ লোনের কিস্তি গুলো কিভাবে পরিশোধ করতে হয়।

আপনি যদি আমাদের দেওয়া লেখা গুলো মনোযোগ সহকারে পড়ে থাকেন তবে আশা করা যায় আপনি এ বিষয়ে কিছুটা হল পরিষ্কার হয়ে গেছেন। আমাদের ওয়েবসাইটের আর্টিকেলটি যদি আপনার ভালো লেগে থাকে তবে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

1 thought on “বিকাশ লোন | বিকাশ লোন কিভাবে নিবো [জেনে নিন এখানে]”

Leave a Comment