কম্পিউটার রচনা [Computer Essay in Bengali]

কম্পিউটার রচনা : আজ আমরা আপনাদের মাঝে এমন একটি আর্টিকেল নিয়ে এসেছি এটি হচ্ছে কম্পিউটার রচনা আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা কম্পিউটার রচনা সঠিক ভাবে লিখতে পারে না।

যারা সঠিকভাবে কম্পিউটার রচনা লিখতে চান তারা আমাদের ওয়েবসাইটে আর্টিকেলটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

আমরা আপনাকে এখানে জানাবো কম্পিউটার নিয়ে কি কি বিষয় উপস্থাপন করার ফলে আপনার কম্পিউটার রচনা টি অনেক সুন্দর হবে চলুন দেখা যাক কম্পিউটার রচনা কিভাবে লিখতে হয় এবং কম্পিউটার রচনায় কি ধরনের তথ্য ব্যবহার করতে হয়।

কম্পিউটার রচনা 

বর্তমান যুগে আমরা অনেক কিছুর সৃষ্টি দেখতে পাচ্ছি তার মধ্যে আধুনিক সভ্যতায় বিজ্ঞানের অনেক বড় একটি অবদান হচ্ছে কম্পিউটার। কম্পিউটার হচ্ছে একটি গণনাকারী যন্ত্র।

কম্পিউটার আবিষ্কারের ফলে মানুষের দৈনন্দিন জীবনের কাজগুলো অনেক সহজ দ্রুততার সাথে সম্পন্ন করা যাচ্ছে কম্পিউটার মূলত গণনাকারী যন্ত্র বলতে প্রথমে আমাদের মনে আসে একটি মনিটর একটি কিবোর্ড মাউস সেন্ট্রাল প্রসেসিং ইউনিট সি পি ইউ।

কম্পিউটারের যতগুলো কাজ করে ইনপুট এবং আউটপুট এর মাধ্যমে মনে করুন কিবোর্ড মাউস এর মাধ্যমে আমরা কম্পিউটারের যেকোন সেন্ট্রাল প্রসেসিং ইউনিট এর মাধ্যমে পাঠিয়ে থাকে সেই নির্দেশ গ্রহণ করে বিশ্লেষণ করে সিপিইউ।

কম্পিউটারের কাজ গুলো বিশ্লেষণ হওয়ার পর মাধ্যমে সেগুলো উত্তর হিসেবে আমাদেরকে প্রদান করে থাকে আর এই সকল পদ্ধতি সম্পন্ন করতে কম্পিউটার সময় লাগে মাত্র কয়েক সেকেন্ড।

কম্পিউটার রচনা [Computer Essay in Bengali]
কম্পিউটার রচনা [Computer Essay in Bengali]
কম্পিউটার মাত্র কয়েক সেকেন্ডের ব্যবধানে গণনাকারী যন্ত্র হিসেবে আমাদেরকে অনেক ধরনের কাজ করে দিতে সক্ষম।

আমরা আজ আপনাদের জানাতে যাচ্ছি কম্পিউটার রচনা। বর্তমান সময়ে কম্পিউটার এমন কোন ক্ষেত্র নেই যেখানে ব্যবহার করা হয় না মনে করুন কম্পিউটার অনলাইন জগতে অনেক কাজ করে থাকে বাণিজ্য ক্ষেত্রে অনলাইন ব্যাংকিং বিভিন্ন ধরনের অফিস-আদালত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর কাজ গুলো সঠিক ভাবে সম্পাদন করার জন্য কম্পিউটার অনেক গুরুত্বপূর্ণ ও প্রয়োজনীয় কাজ করে থাকে।

কম্পিউটার কি?

কম্পিউটার হচ্ছে এমন একটি গণনাকারী যন্ত্র যার সাহায্যে আমরা বিশেষ বিশেষ কাজগুলো সম্পাদন করতে পারে। কম্পিউটার যেহেতু হিসাব করি যন্ত্র একসাথে আমরা বিভিন্ন ধরনের হিসাব-নিকাশ করে থাকি এটি মানুষের দ্বারা সম্ভব নয় আমরা মানুষেরা যেকোনো 2 থেকে 3 সংখ্যা একসাথে যোগ করতে পারি কিন্তু কম্পিউটারে কোটি কোটি সংখ্যা একসাথে যোগ করে তাওবা চোখের পলকে।

কম্পিউটারের মাধ্যমে বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের কাজ করা হয়ে থাকে যেমন আপনাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা কম্পিউটারের মাধ্যমে আমাদের এই আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ছে।

আমরা আশা করি আপনি আমাদের কথা অনুযায়ী বুঝতে পেরেছেন কম্পিউটার কি। আপনি যদি না বুঝে থাকেন তবে দয়া করে আবারো আলোচনায় মনোযোগ সহকারে পড়েন।

কম্পিউটার কত প্রকার ও কি কি

আপনি জানতে পারলেন কম্পিউটার কি? এখন আমরা আপনাদের জানাতে যাচ্ছি কম্পিউটার কত প্রকার ও কি কি ? কম্পিউটার হচ্ছে তিন প্রকার যথা-

  • হাইব্রিড কম্পিউটার
  • এনালগ কম্পিউটার
  • ডিজিটাল কম্পিউটার

আপনার যদি হাইব্রিড কম্পিউটার কথা বলতে চাই তাহলে এর পেছনে অনেক বিষয় রয়েছে যখন বিশ্বে প্রথম কম্পিউটার আবিষ্কৃত হয় তখন হাইব্রিড কম্পিউটার নামে পরিচিত ছিল সেটাতে ছিল একটি ঘরের সমান যথা আপনার যখন সিনেমা হলে পদ্ধতি দেখতে পান ঠিক সেরকমই হাইব্রিড কম্পিউটার এর আকার ছিল এবং সেখান যে কিবোর্ড ব্যবহার করা হতো সেটিও অনেক বিশাল ছিল সেটি ব্যবহার করত প্রায় 100 জন লোক।

অন্যদিকে এনালগ কম্পিউটার কথা বলতে গেলে বলা যায় আপনারা হাইব্রিড কম্পিউটার এর কথা জানতে পারলেন তো আপনার মনে প্রশ্ন থাকতে পারে যে এনালগ কম্পিউটার কি এবং এনালগ কম্পিউটার দেখতে কেমন।

এনালগ কম্পিউটার হচ্ছে যখন হাইব্রিড কম্পিউটার এর বৃদ্ধি পেয়ে যায় তারপর বিজ্ঞানীরা কম্পিউটারকে আকারে ছোট করার জন্য কম্পিউটার ব্যবহার করে থাকে আবিষ্কার করা থাকে এগুলো দেখতে প্রায় টেলিভিশনের মতো।

বর্তমান সময়ে কিছু যোগ আগে যেসকল ভারি ভারি টেলিভিশনগুলো ঠিক সেরকম ভাবেই এনালগ কম্পিউটার কে সৃষ্টি করা হয়েছিল সে কম্পিউটার গুলোকে বলা হয় আরালা কম্পিউটার।

আরো পড়ুনঃ

এখন বর্তমানে আপনারা যে সকল কম্পিউটার গুলো দেখতে পারছেন এবং এগুলোকে কাজ করা হয় সেগুলো কে বলা হয় ডিজিটাল কম্পিউটার এনালগ কম্পিউটার এবং হাইব্রিড কম্পিউটার গুলো ছিল আকারে অনেক বড়।

তাই বিজ্ঞানীরা মানুষের সহজে বহন করার জন্য অনেক স্লিম আকারে ডিজিটাল কম্পিউটার গুলো তৈরি করে থাকে এবং এককথায় বলা যায় আমরা বর্তমানে যে সকল কন্টাক্ট গুলো ব্যবহার করে যাচ্ছি এই কম্পিউটারগুলোকে বলা হয় ডিজিটাল কম্পিউটার।

কম্পিউটার অংশগুলোর নাম?

আমরা যখন কম্পিউটার ব্যবহার করি তখন সে কম্পিউটার ব্যবহার করার জন্য অনেক যন্ত্রাংশ যুক্ত থাকে সেই যতগুলো হচ্ছে-

  • সিপিইউ/পিসি
  • মনিটর
  • কিবোর্ড
  • মাউস
  • প্রিন্টার
  • স্ক্যানার
  • ডিজিটাল ক্যামেরা
  • ফ্যাক্স ইত্যাদি

কম্পিউটারের মাধ্যমে উক্ত যন্ত্রপাতিগুলো ছাড়াও আরও অনেক ধরনের অংশ রয়েছে সেই জিনিস গুলো একসাথে কম্পিউটারে কাজ করার ফলে কম্পিউটারের কাজ গুলো আরো অনেক সহজ হয়ে যায়।

কম্পিউটারের সুবিধা ও অসুবিধা

কম্পিউটার সম্পর্কে আলোচনা অনেক কিছু জানতে পেরেছেন এখন আমরা আপনাকে জানাতে চাচ্ছি কম্পিউটার ব্যবহারের ক্ষেত্রে অনেক ধরনের সুবিধা রয়েছে এবং তার সাথে কিছু অসুবিধা রয়েছে। কম্পিউটারের সুবিধা ও অসুবিধা গুলো কি কি?

কম্পিউটারের কাজ করার জন্য অনেক সুবিধা রয়েছে তার মধ্যে যে সকল বিষয়গুলো অনেক গুরুত্বপূর্ণ সেগুলো হচ্ছে-

কম্পিউটার বিশাল আকারের তথ্যভান্ডার

সারা পৃথিবীতে কোটি কোটি তথ্যে এক নিমিষেই খুঁজে পাওয়া যায় তাও আবার নিজের ঘরে বসে যদি একটিমাত্র কম্পিউটার ও ইন্টারনেট পরিষেবা সংযুক্ত করা থাকে তাছাড়া বর্তমান সময়ে কম্পিউটার গুলো তথ্য শান্তিতে রাখার জন্য অনেক মেমোরি স্টরেস দেওয়া থাকে।

মনে করুন আপনি যদি একটি কম্পিউটার কিনে থাকেন তখন সেই কম্পিউটারে সর্বনিম্ন 500gb এর মত হার্ডডিক্স প্রদান করা হবে এছাড়া আপনি যদি আরো বেশি জিবি আকারে বা টেরাবাইট আকারে হার্ডডিক্স বা মেমোরি ব্যবহার করতে চান তাহলে সেটিও পারবেন 500gb মানে কিন্তু অনেক বেশি।

আপনার কম্পিউটারে যদি একটি 500 জিবি হার্ডডিস্ক সেট করা থাকে তাহলে সেখানে আপনি কোটি কোটি তথ্য সরবরাহ বা সংরক্ষণ করে রাখতে পারবেন।

কম্পিউটারে আপনার প্রয়োজনীয় যেকোন ফাইল ছবি ভিডিও অডিও গান ইত্যাদি জিনিসগুলো সহজেই সংরক্ষণ করে রাখতে পারবেন এই জিনিসগুলো আপনার সারা জীবনের স্মৃতি হয়ে কম্পিউটারে চিরস্থায়ী থাকবে। তাই কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক গুলোকে বলা হয় তথ্যের ভাণ্ডার।

ইন্টারনেট পরিষেবা ব্যবহার

বর্তমানে যারা কম্পিউটার ব্যবহার করে থাকে তারা সকলেই ইন্টারনেট পরিষেবা ব্যবহার করে থাকে। যখন ইন্টারনেট ব্যবহার করা হয় তখন ইলেকট্রনিক যন্ত্রের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে হয় তার মধ্যে যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করে তারা সকলেই কম্পিউটার ল্যাপটপ ব্যবহার করে ইন্টারনেট এ কাজ করে থাকে এবং ইন্টারনেট পরিষেবা ব্যবহার করেন।

কম্পিউটারে অনুসন্ধানের কাজ

কম্পিউটার একটি যন্ত্র যার মাধ্যমে অনেক বড় বড় হিসাব-নিকাশ করা একদম পানির মত সহজ আর এই কম্পিউটার যন্ত্রের আবিষ্কারের পেছনে মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে সহজ ও দ্রুত হিসাব নিকাশ করা।

কম্পিউটারের প্রকৃতভাবে সুবিধা হচ্ছে অত্যন্ত সহজেই তথ্য সংরক্ষণ পদ্ধতি সার্চ ফলাফল সংগ্রহ করা যায় আর্থিক এই জন্যই বিভিন্ন ধরনের অনুসন্ধানের কাজে কোন বিষয়ে গবেষণা করা ইত্যাদি কাজে কম্পিউটারের সাহায্য নিতে হয়।

কম্পিউটারের মাধ্যমে যেকোনো তথ্যগুলো সহজেই অনুসন্ধানের কাজগুলো সম্পাদন করা হয় এবং আমরা যেকোন বিষয়ে যদি অনুসন্ধান করি তবে কম্পিউটারে সার্চ করে সহজেই খুজে পাওয়া যায়।

কম্পিউটারে মাল্টিমিডিয়া সুবিধা

বর্তমান সময়ে কম্পিউটার অনেক ধরনের কাজে সংযুক্ত রয়েছে তার মধ্যে একটি জনপ্রিয় কাজ হচ্ছে মাল্টিমিডিয়া। মাল্টি মিডিয়ার মাধ্যমে অনেক ধরনের প্রেজেন্টেশন সম্পন্ন করা হয় এবং এই মাল্টি মিডিয়ার মাধ্যমে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ক্লাস নেওয়া হয় যেমন সে ক্লাসের নাম হচ্ছে মাল্টিমিডিয়া ক্লাস।

মাল্টিমিডিয়া ব্যবহার করার ফলে অনেক সহজেই শিক্ষার্থীদের ক্লাস নেওয়া সম্ভব হয় কারণ এখানে বিভিন্ন ধরনের ছবি দৃশ্য এবং অডিও ভিডিও গুলো সংযুক্ত করে প্রেজেন্টেশন তৈরি করা যায়। আপনি যদি মাল্টিমিডিয়ার কাজগুলো করতে চান তবে আপনাকে অবশ্যই কম্পিউটারের সাহায্য নিতে হবে কারণ মাল্টিমিডিয়া ক্লাস তৈরি করা বা প্রেজেন্টেশন তৈরি করার অবশ্যই একটি কম্পিউটার ব্যবহার করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ

কম্পিউটারের অসুবিধা 

কম্পিউটার ব্যবহার করার ফলে অনেক সুবিধা রয়েছে তার মধ্যে কিছু অসুবিধা রয়েছে আপনারা আলোচনার মাধ্যমে জানতে পেরেছেন কম্পিউটারের কি ধরনের সুবিধা ভোগ করা যায় এখন আমরা আপনাদের জানাব কম্পিউটারে কি ধরনের অসুবিধা রয়েছে।

আপনি যদি কম্পিউটারের অসুবিধা গুলো জানতে চান তবে আমাদের আর্টিকেলটি নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন-

কম্পিউটার আসক্তি

বর্তমান সময়ে অনেক মানুষ কম্পিউটার ব্যবহার নেশায় আটকে পড়ে আছে যার ফলে তারা তাদের জীবনযাপনে অনেক প্রবল অনি হাতে ভুগছেন এই আসক্তির ফলে মানুষ সাধারণ জীবনযাপন এ ঘাটতি দেখা যাচ্ছে সর্বতোভাবে কম্পিউটার আসক্তির ফলে মানুষের শারীরিক ও মানসিকভাবে অনেক ক্ষতির প্রভাব দেখা দিচ্ছে।

আপনি যখন কম্পিউটারে কাজ করার সময় কাজ ব্যতীত অযথাই অন্যান্য কাজে সম্পৃক্ত হবেন তখন আপনি কম্পিউটার আসক্তিতে ভুগছেন তাই আপনার কাজ অনুযায়ী কম্পিউটার ব্যবহার করুন এর ব্যতীত নয়।

শারীরিক ও মানসিক অবনতি

আপনার যখন কম্পিউটার ব্যবহার করেন তখন আপনার প্রয়োজনীয় কাজ ছাড়া অন্যান্য কাজ গুলো করার ফলে আপনার শারীরিক ও মানসিক অনেক ধরনের প্রভাব পড়ে থাকে তাই আপনাদের চেষ্টা করতে হবে প্রয়োজনের তুলনায় কাজ একটু কমানোর।

কম্পিউটার অতিরিক্ত ব্যবহার করার ফলে আপনাদের শারীরিক ও মানসিক এর অনেক অবনতি হয় এবং সেই সাথে চোখের দৃষ্টির অনেক সমস্যা হয়ে যায় যাতে করে আপনারা চোখে ঝাপসা দেখতে পান। আপনার যদি দৈনিক সাত থেকে আট ঘণ্টা কম্পিউটার ব্যবহার করেন তাহলে আপনাদের শারীরিক ও মানসিক দিক দিয়ে অনেক প্রভাব পড়বে তাই আপনাদের সেই বিষয়গুলো খেয়াল রাখতে হবে।

প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত কম্পিউটার ব্যবহার করার ফলে আপনারা যে আসক্তিতে ভুগছেন সেগুলো হচ্ছে আপনার শরীর ব্যথা করবে এবং ঘাড়ে পিঠে অনেক ব্যথা অনুভব হবে এবং আপনার মেজাজ অনেক খেটখেটে থাকে। তাই আপনাদের অধিক কম্পিউটার ব্যবহার করার মাত্রাটি কমিয়ে নেওয়া।

আপনি আজ আমাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানতে পারলেন কম্পিউটার রচনা কি এবং কম্পিউটারে কিভাবে লিখতে হয় আপনি যদি উপরের আলোচনা গুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করে থাকেন তবে আপনিও কম্পিউটার রচনা আজ থেকে শিখে ফেলেছেন।

আরো পড়ুনঃ

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা আজ আমাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানতে পারলেন কম্পিউটার রচনা কিভাবে লিখতে হয় এবং কম্পিউটার রচনা কিভাবে সাজাতে হয়। আপনার যদি হয়ে থাকেন তাহলে আপনাদের জন্য এই আর্টিকেলটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

আপনারা যদি আমাদের দিকে মনোযোগ সহকারে পড়ে থাকেন তাহলে আপনিও রচনা বিষয়ে বিস্তারিত জানা গেছে। আমাদের এই আর্টিকেলটি যদি আপনাদের কাছে ভাল লেগে থাকে তবে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

কম্পিউটার রচনা [Computer Essay in Bengali] কম্পিউটার রচনা [Computer Essay in Bengali] কম্পিউটার রচনা [Computer Essay in Bengali] কম্পিউটার রচনা [Computer Essay in Bengali] কম্পিউটার রচনা [Computer Essay in Bengali] কম্পিউটার রচনা [Computer Essay in Bengali] কম্পিউটার রচনা [Computer Essay in Bengali]

আমাদের ওয়েবসাইটে কম্পিউটার বিষয়ক অনেক ধরনের পোস্ট আপলোড করা রয়েছে আপনার যদি সেগুলো পড়তে চান তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটটি নিয়মিতভাবে ভিজিট করুন ধন্যবাদ।

Leave a Comment