ইজোয়িক (Ezoic) থেকে আয় করার উপায় [বিস্তারিত এখানে]

বর্তমানে অনেক উপায়ে অনলাইন আয় করার যায়। কিন্তু আপনি কি জানেন ইজোয়িক থেকে অনলাইন আয় করা যায়।

Ezoic ব্যবহার করে অনেক লোক অনলাইনে আয় করছে। আপনি কি ইজোয়িক কি ?  এবং ইজোয়িত থেকে কিভাবে আয় করতে হয় সে বিষয়ে জানতে আমাদের এই আর্টিকেল শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ভালো ভাবে পড়ুন।

আমরা জানি ইজোয়িক গুগল এডসেন্স এর মতো। গুগল এডসেন্স ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন দেখায় আর ইজোয়িক সেই বিজ্ঞাপন গুলোকে অপটিমাইজ করে থাকে।

এখানে কোড বা প্রোগ্রামিং ভাষা গুলোর মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইটের বিজ্ঞাপন গুলো ডিভাইস হিসেবে অপটিমাইজ করার জন্য Ezoic অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

ইজোয়িক (Ezoic) থেকে আয় করার উপায় [বিস্তারিত এখানে]
ইজোয়িক (Ezoic) থেকে আয় করার উপায় [বিস্তারিত এখানে]

ইজোয়িক কি ?

ইজোয়িক হচ্ছে গুগল এডসেন্স এর মত। গুগল এডসেন্স যে ভাবে ওয়েবসাইট এবং ইউটিউবে বিজ্ঞাপন দেখায় আর অন্যদিকে ইজোয়িক সেই এড গুলোকে অপটিমাইজ করে থাকে।

আপনার একটি প্রশ্ন হতে পারে যে, বিজ্ঞাপন অপটিমাইজ কি ? আপনি যদি এটির উত্তর জনতে চান তবে এই লেখা গুলো মনযোগ দিয়ে পড়ুন।

আমরা যারা ইউটিউব ও ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন ব্যবহার করি ঠিক তখন সেই গুগল এডসেন্স আমাদের প্লাটফর্ম গুলোতে বিজ্ঞাপন প্রচার করে।

আমরা যারা এডসেন্স ব্যবহার করি তারা সাইটে অটো এডস ব্যবহার করে থাকি। সেই সময় গুগল আপনার সাইটের ফ্রি স্পেস পায়। ঠিক সেখানে আপনার এডস বসিয়ে দেয়।

উক্ত কারণে দেখা যায় একটি পেজে শুধু মাত্র ২-৩ টা অটো এডস শো করে। এজন্য সাইটের পেজ লোড হতে কিছু সময় নিয়ে থাকে।

এই সমস্যার সমাধান দিতে বিজ্ঞাপন গুলো অপটিমাইজ করার জন্য ইজোয়িক সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

গুগল এডসেন্স এবং ইজোয়িক এর মধ্যে পার্থক্য কি ?

যারা গুগল এডসেন্স এবং ইজোয়িক কে এক মনে করে থাকে। এ বিষয়ে আপনি যদি গুগলে একটু রিচার্স করেন তবে এই দুটির মধ্যে কিছু পার্থক্য খেয়াল করতে পারবেন। আমরা আপনাকে এখানে গুগল এডসেন্স ও ইজোয়িক এর পার্থক্য দেখাব। তার জন্য নিচে দেওয়া তথ্য গুলো আরো মনযোগ দিয়ে পড়ুন।

# প্লাটফর্ম

আমাদের সকলের জনা উচিত ইজোয়িক ও গুগল এডসেন্স এর মধ্যে পার্থক্য কি ? আমরা জানি গুগল এডসেন্স ও ইজোয়িক দুটিই হলো ফ্রি প্লাটফর্ম।

আপনি যদি গুগল এডসেন্স আপনার কোন ওয়েবসাইটে যুক্ত করতে চান তবে সেখানে কোন বিধিনিষেধ নেই।

আর যদি ওয়েবসাইটে ইজোয়িক এর সাথে সংযুক্ত করতে চান তবে আপনাকে অনেক কিছু বিধিনিষেধ অনুসরণ করতে হবে।

যেমন- ইজোয়িক ব্যবহার করার জন্য আপনার ওয়েবসাইটে প্রতি মাসে অন্তত ১০ হাজার এর মতো ইউনিক ট্রাফিক বা ভিজিটর থাকতে হবে।

# ড্যাশবোর্ড

আপনি যদি ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্স ব্যবহার করেন তবে আপনি অবশ্যই গুগল এডসেন্স ড্যাশবোর্ড সম্পর্কে ভালো ভাবে জানেন।

এডসেন্স এর ড্যাশবোর্ডে ক্লিক অন এডস, কস্ট পার ক্লিক সিপিসি, ক্লিক থ্রু রেড সিটিআর এর মাধ্যমে যে কোন এডসেন্স ড্যাশবোর্ড মনিটরিং করা হয়।

আপনি যদি ইজোয়িক ব্যবহার করেন তবে এইসব কোন কিছু ড্যাশবোর্ডে দেখতে পারবেন না। আপনি শুধু মাত্র ইজোয়িক ড্যাশবোর্ড থেকে প্রতি ১ হাজার ভিউতে কত টাকা আয় করছেন সেই বিষয়ে জানতে পারবেন।

# পেমেন্ট

গুগল এডসেন্স ও ইজোয়িক দুটির মধ্যে অনেক মিল দেখা যায় যেমন- ইজোয়িক ও এডসেন্স  থেকে ওয়েবসাইটে টাকা আয় করা যায়। এখানে কাজ করে প্রতি মাসে পেমেন্ট তোলতে পারবেন।

কিন্তু গুগল এডসেন্স একাউন্ট থেকে পেমেন্ট নিতে হলে তাদের কিছু শর্ত আছে তা হচ্ছে আপনার এডসেন্স এ যখন ১০০ ডলার হবে তখন আপনি পেমেন্ট তোলতে পারবেন।

আর আপননি যদি ইজোয়িক দিয়ে পেমেন্ট তোলতে চান তবে আপনার একাউন্টে প্রতি মাসে ২০ ডলার থাকতে হবে। তাহলে আপনি টাকা উথড্র করতে পারবেন।

# লেআউটি

আপনি যদি গুগল এডসেন্স দিয়ে ওয়েবসাইটে অটো এডস ব্যবহার করে তবে আপনার জানা থাকবে যে, অটো এডস এর কারণে ওয়েবসাইটে অনেক বেশি এড দেখা যায়। যার কারণে ওয়েবসাইট গুলোর স্পিড কমে যায়। তার জন্য এডসেন্স এর সিটিআর কমে যায়।

আপনি যদি ইজোয়িক ব্যবহার করেন তবে আপনার ওয়েবসাইটের স্লো নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। ইজোয়িকে অতিরিক্ত লোড পরার ফলেও কোন সাইটের স্পিড কমবে না।

ইজোয়িক এমন এক ধরণের প্লাটফর্ম যেখানে আপনি চাহিদা অনুযায়ী বিজ্ঞাপন বসিয়ে আয় করতে পারবেন।

# একাউন্ট সেফটি

আমরা জানি গুগল এডসেন্স এর একাউন্ট সেফটি রাখাটা একটি বড় সমস্যা। এডসেন্স একাউন্টে কোন ধরণের ইনভিলিট ক্লিক পরার জন্য সাইট ডাউন বা সাস্পেন্ড, ব্যান হওয়ার সমস্যা থাকে। এখানে সামান্য ভুলের কারণে আপনার একাউন্ট ব্যান করে দিতে পারে। এডসেন্স এ কোন সমস্যার কারণে ব্যান হলে অনেক সময় নোটিশ ও প্রেরণ করেন না।

আর আপনি যদি ওয়েবসাইটে ইজোয়িক ব্যবহার করেন তবে আপনার একাউন্ট কোন সমস্যা হবে না। আপনি এই প্লাটফর্ম এ কাজ করার সময় যদি তাদের টার্মস এন্ড কন্ডিশন মেনে না কাজ করেন তবে তারা আপনার ইজোয়িক একাউন্ট ব্যান করবে না।

আপনি কাজ করার সময় যদিও কোন সমস্যা করে  ফেলুন তবে আপনাকে ইজোয়িক থেকে আপনাকে ই-মেইলে নোটিশ প্রেরণ করবেন। আপনি যদি নোটিশ পাওয়ার পরের কোন উত্তর না দিয়ে চুপ করে থাকেন তবে তারা আপনার ইজোয়িক ব্যান করে দিবে।

ইজোয়িক কেন ব্যবহার করবেন ?

আমাদের উক্ত আলোচনাকে আশা করা যায় বুঝতে পারছেন ইজোয়িক ও গুগল এডসেন্স এর মধ্যে কি ধরণের পার্থক্য আছে।

আপনার এখন প্রশ্ন হতে পারে ইজোয়িক কেন কিভাবে ব্যবহার করবেন। সেই বিষয় সম্পর্কে আমরা আপনাকে বলব। আপনাকে আমাদের লেখা গুলো ভালো ভাবে পড়তে হবে।

আমরা জানি ইজোয়িক প্লাটফর্ম ওয়েবাসাইটে দুইটি কারণে ব্যবহার করা হয় সেগুলো হলো- অপটিমাইজেশন করার জন্য আর আয় বাড়ানোর জন্য।

আপনি যদি কোন ওয়েবসাইটে কাজ করেন তবে আপনাকে মূলত অপটিমাইজেনশ ও আয় বাড়ানোর জন্য ইজোয়িক ব্যবহার করতে হবে।

# অপটিমাইজেশন করতে ইজোয়িক

আমরা ওয়েবসাইটের জন্য যে সকল এড নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে থাকি সেগুলোতে সেরকম ভালো অপটিমাইজ করা থাকে না।

অনেক সময় দেখা যায় ওয়েবসাইটের ডিজাইন ও লেআউট ভালো না থাকার কারণে ওয়েবসাইটের উন্নতি হয় না। এই সমস্যা গুলো থেকে সমাধান পেতে আপনাকে ইজোয়িক গুরুত্বপূর্ণ ভমিকা পালন করবে।

ইজোয়িক ব্যবহার করলে আপনার ওয়েবসাইটের ডিজাইন অনুযায়ী যে কোন বিজ্ঞাপন ইচ্ছা মতো কাস্টমাইজ করে সাজাতে পারবেন। এটি গুগল এডসেন্স এ পারবেন না।

ওয়েবসাইটে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে লোডিং স্পিড কমে যাওয়া। এর ফলে ভিজিটর বিভ্রান্তিতে পড়ে যায় এবং তারা সাইট থেকে চলে যায়।

এই সমস্যা গুলো থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য আপনার অবশ্যই ইজোয়িক ব্যবহার করা দরকার।  ইজোয়িকে নিজের ইচ্ছা মতো করে এড কাস্টমাইজ করা যায়।

# আয় বাড়ানোর জন্য ইজোয়িক

আমরা যারা ওয়েবসাইটে কাজ করি তাদের একটাই লক্ষ্য  আয় বৃদ্ধি করা। আপনি যদি আয় বাড়াতে চান তবে ইজোয়িক আপনার সেই লক্ষ্যকে সফল করতে অনেক ভালো সহযোগিতা করবে।

ইজোয়িক ব্যবহার করলে প্রথমে আপনার ওয়েবসাইটের ভিজিটরের একটিভিটি ভালো করে এনালাইস করে দেখবে তার পরে ভিজিটর এর লোকেশন অনুযায়ী বিজ্ঞাপন শো করবে।

এটি করার ফলে আপনার ওয়েবসাইটে সিটিআর বৃদ্ধি হবে ইমপ্রেশন বাড়বে। এই কাজটি হলে আপনার ওয়েবসাইটের বিজ্ঞাপনে ক্লিক বাড়তে থাকবে। এ বিষয় গুলো হওয়ার ফলে আপনার ওয়েবসাইটে আয় বৃদ্ধি পাবে।

আপনি যদি ওয়েবসাইটের জন্য বিজ্ঞাপন গুলো অপটিমাইজ করতে চান তবে এর পাশা পাশি বিপুল পরিমানের টাকা আয় করতে পারবেন।

শেষ কথাঃ

আপনি যদি আমাদের এই সাইটের লেখা গুলো ভালো ভাবে পড়ে থাকেন তবে ইজোয়িক এর বিষয়ে কিছু হলেও ধারণা পেয়েছেন।

ইজোয়িক গুগল এডসেন্স এর মতো একটি এড নেটওয়ার্ক। যেখানে কাজ করে এডসেন্স চেয়ে ভালো পরিমানের টাকা আয় করা যায়।

ট্যাগ : ইজোয়িক (Ezoic) থেকে আয় করার উপায় [বিস্তারিত এখানে] ইজোয়িক (Ezoic) থেকে আয় করার উপায় [বিস্তারিত এখানে] ইজোয়িক (Ezoic) থেকে আয় করার উপায় [বিস্তারিত এখানে] ইজোয়িক (Ezoic) থেকে আয় করার উপায় [বিস্তারিত এখানে] ইজোয়িক (Ezoic) থেকে আয় করার উপায় [বিস্তারিত এখানে]

আমাদের এই পোস্ট যদি আপনার ভালো লেখে থাকে তবে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

Leave a Comment