NID Card হারিয়ে গেলে কি করবেন | স্মার্ট কার্ড হারিয়ে গেলে করণীয় কি ? [রি-ইস্যু সমাধান]

বর্তমানে সবার একটি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হচ্ছে জাতীয় পরিচয় পত্র (স্মার্ট কার্ড)। জাতীয় পরিচয় পত্র সকালের একটি প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট। এটি মানুষের কাছে জরুরী একটি ডকুমেন্ট হওয়া সত্ত্বেও অনেক সময় এটি হারিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে কিংবা কোন কারণে হারিয়ে যায় বা নষ্ট হয়ে যায়।

যেমন মনে করুন আপনি কোন জায়গায় ভ্রমণ করতে গিয়েছেন সেই সময় আপনার ব্যাগের ভেতরে অন্যান্য জিনিস পত্রের সাথে জাতীয় পরিচয় পত্র কাটতিও রেখে দিয়েছেন কিন্তু, হঠাৎ করে বলা যায় না আপনার যদি সেই ব্যাগ ছিনতাই হয়ে যেতে পারে।

আপনি যদি এ ধরনের সমস্যায় পরে থাকেন তবে আমরা আজকে আমাদের এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানাব কিভাবে হারিয়ে যাওয়া জাতীয় পরিচয় পত্র ইস্যু করা যায়।

আপনি যদি আমাদের এই আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়েন তাহলে আপনিও জানতে পারবেন কিভাবে জাতীয় পরিচয় পত্র স্মার্ট কার্ড হারিয়ে গেলে ফিরে পাওয়ার উপায়।

আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র স্মার্ট কার্ড কি হারিয়ে গেছে ? আপনার ভুলবশত জাতীয় পরিচয় পত্র নষ্ট হয়ে গেছে, কিংবা আপনার ভুলবশত আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র স্মার্ট কার্ড অন্য কোথাও রেখে চলে এসেছেন।

NID Card হারিয়ে গেলে কি করবেন | স্মার্ট কার্ড হারিয়ে গেলে করণীয় কি ? [রি-ইস্যু সমাধান]
 NID Card হারিয়ে গেলে কি করবেন | স্মার্ট কার্ড হারিয়ে গেলে করণীয় কি ? [রি-ইস্যু সমাধান]
আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র নিয়ে যদি এরকম ধরনের সমস্যায় পড়ে থাকেন তবে সহজে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র রিসোর্স সমাধান করে নতুন একটি আইডি কার্ড সংগ্রহ করে নিতে পারবেন।

এনআইডি কার্ড হারিয়ে গেলে করণীয় 

আমরা উক্ত আলোচনায় বলেছি আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র যদি কোনো কারণে চিন্তায় কিংবা হারিয়ে যায় বা নষ্ট হয়ে যায় তাহলে সেটি ফিরে পাওয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে নিতে হবে।

তারপর আপনার হারিয়ে যাওয়া আইডি কার্ডের যে সাধারণ ডায়েরি থানায় জমা করেছেন সেটির একটি রিসিভ কপি সাথে নিয়ে আপনি নিজে নিজে কিংবা যে কোনো কম্পিউটার দোকানে গিয়ে আবেদন করতে পারবেন।

কিভাবে জাতীয় পরিচয় পত্র হারিয়ে গেলে সাধারণ ডায়েরি দরখাস্ত লিখবেন এবং কিভাবে অনলাইনে আবেদন করবেন, সে বিষয়ে আমাদের এই ওয়েবসাইটে সুন্দর করে বিস্তারিত আলোচনা করা আছে আপনি শুধু লেখা গুলো অনুসরন করুন।

NID Card হারিয়ে গেলে কিভাবে সাধারণ ডায়েরি করবেন ?

এনআইডি কার্ড হারিয়ে গেলে থানায় সাধারণ ডায়েরি করার জন্য আপনাকে একটি সাদা কাগজে দরখাস্ত লিখতে হবে কিংবা আপনি যদি কম্পিউটার টাইপিং করে দিতে হবে সেটিও করতে পারেন।

সাধারণ ডায়েরির দরখাস্ত টাইপ কিংবা হাতে লিখে আপনার স্বাক্ষরযুক্ত 2 কপি নিয়ে আপনার নিকটস্থ থানায় দিয়ে সাধারণ ডায়েরি করার জন্য থানার ডিউটি অফিসার কে সেটি দিবেন।

উক্ত সাধারণভাবে থানার ডিউটি অফিসারের কাছ থেকে বিবিসির সাক্ষাৎকারে নিয়ে সেখানে অবশ্যই বেশি নম্বর, ডিউটি অফিসারের নাম, নামসহ সীলমোহর, স্বাক্ষর ও সাধারণ ডায়েরি করার তারিখ উল্লেখ করে নেবেন।

সাধারণ ডায়েরি দরখাস্ত লেখার নিয়ম

কিভাবে থানায় সাধারণ বিজ্ঞান সে বিষয়ে আমরা একটি নমুনা প্রদান করব। সে অনুযায়ী আপনি যদি সাধারণ ডায়েরির দরখাস্ত লিখন তবে যেকোনো সময় সাধারণ ডায়েরি থানায় সাবমিট করে সেটি অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র ইস্যু করার জন্য সুযোগ পাবেন।

বরাবর,
অফিসার ইনচার্জ
থানার ………….. নাম
জেলার ………… নাম

বিষয়ঃ সাধারন ডায়েরিকরণ প্রসঙ্গে।

জনাব,

বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার নাম …… (বয়স), পিতা/স্বামীর নাম…………, গ্রামঃ গ্রামের নাম………….., ডাকঘরঃ  ……………….., উপজেলাঃ ………………., জেলাঃ …………………, আমি উক্ত থানায় হাজির হয়ে এই মর্মে লিখিত ভাবে জানাচ্ছি যে, গত হারানোর  …………………. তারিখে আমার নিজ বাড়ি হতে যেকোন একটি স্থানের ………………. থেকে আসার পথে অজ্ঞাত স্থানে আমার জাতীয় পরিচয়পত্র স্মার্ট কার্ডটি হারিয়ে ফেলি। ভোটার আইডি কার্ড নম্বরঃ ৮৯*********10, সম্ভাব্য অনেক স্থানে খোঁজাখুজি করেও পাচ্ছি না। এখনো খোঁজা অব্যাহত আছে বিধায় ভবিষ্যতের জন্য সাধারণ ডায়েরিভুক্ত করা একান্ত প্রয়োজন।

অতএব, উপরোক্ত বিষয়ে সাধারণ ডায়েরিভুক্ত করতে আপনার সু-আজ্ঞা হয়।

তারিখ: ……………………….

নিবেদক

স্বাক্ষরঃ

(আপনার নাম…………..)
মোবাইলঃ 017******10

আরো পড়ুনঃ

NID Card রি-ইস্যু করতে কি কি কাগজ লাগবে?

NID Card রি-ইস্যু করার জন্য কোন ধরণের তথ্য প্রয়োজন পড়বে না। জাতীয় পরিচয় পত্র রি-ইস্যু করার জন্য শুধু থানার সাধারণ ডায়েরীর ফরমটি আপনার স্থায়ী নির্বাচন কমিশন অফিস থেকে সত্যায়িত করে করে নিতে হবে। আর যদি সত্যায়িত না করেন তবে সমস্যা নেই।

জাতীয় পরিচয় পত্র রি-ইস্যু করতে কত টাকা লাগবে ?

আপনি যদি জাতীয় পরিচয় পত্র অনলাইনে রি-ইস্যু করতে চান তাহলে আপনার ২৩০ টাকা লাগবে। আপনি যদি স্মার্ট কার্ডের জন্য আবেদন করেন তাহলে সেই ক্ষেত্রে আপনার একটু বেশি পরিমাণের টাকা লাগবে।

জাতীয় পরিচয় পত্র রি-ইস্যু করতে কত টাকা লাগবে সেই জন্য আমরা আপনার সুবিধার জন্য এখানে একটি লিংক শেয়ার করবো। যার ফলে আপনি জানতে পারবেন রি-ইস্যু করতে কত টাকা লাগে।

জাতীয় পরিচায়পত্র রি-ইস্যু করতে কত টাকা লাগে দেখতে ক্লিক করুন

ই-ইস্যুর জন্য কিভাবে আবেদন করবেন ?

আপনি যদি জাতীয় পরিচয়পত্র হারিয়ে থাকেন কিংবা নষ্টে হয়ে যায় তাহলে আপনাকে অবশ্যই অনলাইনে রি-ইস্যু করতে হবে। কিভাবে এনআইডি কার্ডের ডুপ্লিকেট কপি তুলবেন তার বিস্তারিত তথ্য এখানে পেয়ে যাবেন।

এনআইডি হারিয়ে গেলে নিচে দেওয়া লিংকে ক্লিক করে আবেদন করতে পারবেন। আমরা আপনার সুবিধার জন্য একটি ছবি প্রস্তুত করেছি এটি দেখুন।

জাতীয় পরিচয় পত্র রি-ইস্যু করার জন্য এখানে ক্লিক করুন

উক্ত লিংকে ক্লিক করার পরে আপনাকে একটি পেজ দেওয়া হবে সেখানে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর দিয়ে আবেদন এর ধরণ দিবেন রি-ইস্যু, তারপরে বিতরনের ধরণ দিবেন জরুরী, তারপরে ছবিতে দেওয়া একটি কোড থাকবে সেটি ভালো করে সঠিক ভাবে লিখতে হবে।

রি-ইস্যুর টাকা পরিশোধ ?

উক্ত তথ্য সঠিক ভাবে পুরণ করার পরে আপনাকে আরো একটি পেজ দেওয়া হবে সেখানে আপনার আইডি কার্ড সংধোন করার জন্য 230 টাকা পেমেন্ট পরিশোধ করতে হবে।

পেমেন্ট পরিশোধ করার জন্য আপনাকে প্রথমে মোবাইল এর রকেট অ্যাপস চালু করতে হবে তারপর বিল-পে অপশনে ক্লিক করতে হবে, তারপর বিলের আইডি হিসাবে ১০০০ টাইপ করতে হবে। তারপরে আপনার এনআইডি কার্ডের নম্বর টাইপ করতে হবে। তারপর আপনাকে বিল-পে সম্পন্ন করতে হবে। তারপরে আবেদন লেখা অপশনে ক্লিক করুন।

জাতীয় পরিচয়পত্র রি-ইস্যুর জন্য আবেদন

আপনি যখন উক্ত কাজ গুলো সঠিক ভাবে সম্পন্ন করবেন তখন আপনি আরো একটি পেজ পেয়ে যাবেন। সেখানে দেখতে পারবেন এডিট অপশন সেখানে ক্লিক করবেন। তারপরে স্থানীয় থাানা থেকে সাধারণ ডায়েরী করার ফরম থেকে ডিডি নম্বর, থানার নাম, ডিজির তারিখ, ডিউটি পুলিশ অফিসারের নাম, পদবী লিখতে হবে। তারপরে উক্ত সিস্টেম অনুযায়ী পেমেন্ট পরিশোধ করুন।

জাতীয় পরিচয় পত্র ডুপ্লিকেট কপি ডাউনলোড করুন

উক্ত তথ্য গুলো পূরণ করার পরে আপনাকে পরবর্তী ধাপে যাওয়ার জন্য একটি বাটনে ক্লিক করতে হবে। পরবর্তী ধাপে যাওয়ার পরে আপনি সেখানে যে টাকা ডিপোজিট করেছেন সেটা দেখাবে এবং সেই অপশন রেগুলোর রেখে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করতে হবে।

উক্ত কাজ শেষে আপনাকে আবারো পরবর্তী ধাপে যেতে হবে। সেখানে আপনার সাধারণ ডায়েরীর কপি আপলোড করতে হবে। তারপরে ফাইল সাজেশন দিতে হবে। তারপরে স্বয়ংক্রিয় ভাবে আপনার ফাইল চলে আসবে সেখানে ক্লিক করে আপনি আপনার রিসিভ কপি ডাউনলোড করে রাখবেন। তারপরে আপনার কাজ শেষ।

রি-ইস্যু কপি পেতে কত দিন সময় লাগে ?

আপনি যদি উক্ত তথ্য গুলো সঠিক ভাবে পূরণ করে আবেদন করে থাকেন তবে এখন আপনার প্রশ্ন হতে পারে যে, কত দিন পরে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র কার্ড পাবেন।

আপনি অনলাইনে আবেদন করার জন্য সাধারণ পিরিয়ডের জন্য করে থাকেন তবে ৫-10 দিন এর মধ্যে সম্পুন্ন হয়ে যাবে। তারপরে আপনার মোবাইলে একটি মেসেজ আসবে। যখন আপনার মোবাইলে মেসেজ আসবে তখন আপনি বুঝবেন আপনার আবেদন সফল ভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

এনআইডি কার্ড কিভাবে পাবেন ?

আপনার মোবাইল সে সময় কনফার্মেশন মেসেজ আসবে তখন আপনি আপনার ইউজার পাসওয়ার্ড দিয়ে নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে লগইন করে কার্ড ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

কিভাবে নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইট লগইন করবেন তার একটি লিংক আমরা দিয়ে দিবো সেখানে ক্লিক করে আপনি জাতীয় পরিচয়পত্র কার্ড ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইট লিংক : ক্লিক করুন

শেষ কখথাঃ

তো বন্ধুরা আজ আমাদের এই ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে NID Card হারিয়ে গেলে কি করবেন এবং স্মার্ট কার্ড হারিয়ে গেলে করণীয় কি?

আপনি যদি উক্ত আলোচনা ভালো ভাবে পড়েন তবে আপনিও এ বিষয়ে পরিষ্কার হয়েছেন। আপনি যদি NID Card হারিয়ে গেলে কি করবেন | স্মার্ট কার্ড হারিয়ে গেলে করণীয় কি ? রি-ইস্যু কিভাবে করতে হয় এ বিষয়ে কোন প্রশ্ন থাকে তবে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন কমেন্ট বক্সের মাধ্যমে।

ট্যাগ: NID Card হারিয়ে গেলে কি করবেন | স্মার্ট কার্ড হারিয়ে গেলে করণীয় কি ? [রি-ইস্যু সমাধান] NID Card হারিয়ে গেলে কি করবেন | স্মার্ট কার্ড হারিয়ে গেলে করণীয় কি ? [রি-ইস্যু সমাধান] NID Card হারিয়ে গেলে কি করবেন | স্মার্ট কার্ড হারিয়ে গেলে করণীয় কি ? [রি-ইস্যু সমাধান] NID Card হারিয়ে গেলে কি করবেন | স্মার্ট কার্ড হারিয়ে গেলে করণীয় কি ? [রি-ইস্যু সমাধান] NID Card হারিয়ে গেলে কি করবেন | স্মার্ট কার্ড হারিয়ে গেলে করণীয় কি ? [রি-ইস্যু সমাধান]

আমরা আপনার প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো। আমাদের এই ওয়েবসাইটের সাথে থাকার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

Leave a Comment