১৫ টি প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইট [বিস্তারিত এখানে]

আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করতে যাচ্ছি অনলাইনের জন্য ১৫ টি প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইট। আপনি এখানে জানতে পারবেন ১৫ টি প্রয়োজনীয় কাজের ওয়েবসাইটের কথা। আপনি যদি তাই চান তবে আপনি সঠিক একটি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করেছেন।

বর্তমানে অনলাইনের দুনিয়াতে বিশেষ বিশেষ আবিষ্কারের ফলে গুগল অনেক তথ্য ভান্ডার খুলে গেছে। পূর্বের সময়ের মতো এখন আর শুধুমাত্র বিলাসিতার জায়গা নয়।

এই তথ্য ভান্ডার গুলো কাজে লাগিয়ে কোটি কোটি মানুষ অনলাইনের মাধ্যমে কাজ করে টাকা ইনকাম করছেন। তাই আপনারও জানা উচিত কোন কোন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কাজ করে টাকা পাওয়া যায়।

আমরা এখানে দেখাবো ইন্টারনেটে থাকা ভালো কিছু কাজের ওয়েবসাইট এর নাম এবং ওয়েবসাইটের কার্যকারিতা। তার আগে আপনাকে জানতে হবে ওয়েবসাইট কি?

১৫ টি প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইট [বিস্তারিত এখানে]
১৫ টি প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইট [বিস্তারিত এখানে]

ওয়েবসাইট কি?

হাই! কেমন আছেন আপনি। আশা করি ভালো আছেন। আজ আমরা আপনাকে ওয়েবসাইট জানাবো ওয়েবসাইট কি? ওয়েবসাইটের প্রয়োজন কি? এবং কাজের ওয়েবসাইট গুলোর নাম কি?

ওয়েবসাইট বলতে গেলে কোন নির্দিষ্ট ওয়েব সার্ভারে সংযুক্ত করা বিভিন্ন ধরনের ওয়েব পেজ কে বুঝায়। আমরা যখন আমাদের প্রয়োজন জিনিস খুঁজতে যায়।

যেমন :  শিক্ষা বিষয়ক তথ্য নিয়ে ওয়েবসাইট, বাংলাদেশের চাকরি বিষয়ক বিজ্ঞপ্তির ওয়েবসাইট, অনলাইন ইনকাম করার ওয়েবসাইট ইত্যাদি যা আমরা আজকাল ইন্টারনেট ব্যবহার করে কম্পিউটার, মোবাইল ফোন বা অন্যন্য স্মার্ট ডিভাইস তথ্য জানতে সার্চ করে থাকি।

তার প্রেক্ষিতে গুগল সার্চ ফলাফল হিসেবে একটি পেজে ১০টি মতো ফলাফল প্রকাশ করে থাকে বিষয়ের নাম অনুসারে। যে গুলো বিষয়ে ক্লিক করে তথ্য দেখা হয় সে গুলোই মুলত প্রতিটি ওয়েবসাইট। আশা করি ওয়েবসাইট কি? এ বিষয়ে আপনার ধারণা মনের মধ্যে ধারনা এসে গেছে।

বিভিন্ন ওয়েবসাইটের ঠিকানা

যাই হোক এখন আমরা আপনার সাথে শেয়ার করবো ১৫ টি প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইটের বিষয় নিয়ে।  আপনি যদি অনলাইনে টাকা ইনকাম করার জন্য কাজ করেন তবে আপনার এই ওয়েবসাইট গুলোর নাম ও কাজ গুলো জানতে হবে।

তাই আপনি যদি ১৫ টি প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইট এর কাজ ও কার্যকারিতা জানতে চান নিচে দেওয়া প্রতিটি ধাপ অনুসরণ করতে হবে।

০১. blogger.com | প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইট

বর্তমানে গুগলের সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি ওয়েবসাইট হলো blogger.com. এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে গুগল এর তরফ থেকে ফ্রি ব্লগিং করা যায়। এই সাইট টি ব্যবহার করে আপনারা ফ্রিতে একটি অনলাইন ব্লগ  শুরু করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আমরা জানি ব্লগার.কম গুগলের একটি নিজস্ব প্রোডাক্ট তাই এখানে ডুমেইন, হোস্টিং ইত্যাদি সকল কিছুই একদম ফ্রি।

আপনি যদি ফ্রিতে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান তাহলে এইটি বেছে নিতে পারেন। আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগ যত বড় হোক না কেন এখানে কোন প্রকার হোস্টিং কিনতে হবে না। কারণ এখানে ১০ জিবি হোস্টিং একদম ফ্রি।

এই ব্লগার দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করলে হোস্টিং নিয়ে চিন্তা করতে হয় না বিশ্বমানের সাপোর্ট থাকায় আপনার ব্লগ অনেক স্পিড হবে এটি গুগলের অসাধারণ একটি দান।

ব্লগার ডট কম ব্যবহার করার জন্য আপনাকে শুধু মাত্র একটি একাউন্ট থাকতে হবে। এবং ব্লগার সাইট খোলার জন্য আপনার প্রয়োজন হবে একটি জিমেইল একাউন্ট। কারণ জিমেইল একাউন্ট খোলা ছাড়া ব্লাগার তৈরি করতে পারবেন না। জিমেইল একাউন্ট খোলার নিয়ম আমাদের এই ওয়েবসাইটে পোস্ট করা আছে। চাইলে দেখে নিতে পারেন।

আমরা জানি ব্লগার সাইট টি মূলত আমেরিকান ব্লগ পাবলিশিং সার্ভিস। এটি ২০০৩ সালে গুগল কোম্পানি নিজেই কিনে নেন। তারপর থেকে ব্লগার সকলের জন্য একটি ফ্রি সার্ভিস হিসেবে ইন্টারনেটে যুক্ত আছে।

আমরা জানি ব্লগার ডট কম ওয়েবসাইট ব্যবহার করা অনেক সুবিধা। এখানে আপনি ওয়েবসাইট তৈরি করে আর্টিকেল পাবলিশ করতে পারবেন।

বর্তমানে অনেক লোক ব্লগার নিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করে অনলাইন থেকে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করছে। আপনি চাইলে এটি ব্যবহার করে প্রতি মাসে ১ লক্ষ টাকা ইনাকম করতে পারবেন।

ব্লগার একাউন্ট কিভাবে খোলবেন তা আমাদের এই ওয়েবসাইটে একটি পোস্ট পাবলিশ করা আছে চাইলে দেখে নিতে পারনে।

ব্লগার সাইট তৈরি করতে নিচের লিংকে ক্লিক করুন :

ব্লগারে কিভাবে ফ্রি ওয়েবসাইট বানানো যায় | মোবাইল দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি।

০২। TinyURL.com | প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইট

আপনি যদি একজন ব্লগার হয়ে থাকেন তাবে Tinyurl.com আপনার প্রয়োজন হয়ে থাকবে। টিনিইউআরএল গুগলের জন্য একটি অন্যতম জনপ্রিয় URL Shortening. এটি ব্যবহার করে আপনি ওয়েবসাইটের যে কোন বড় URL ছোট URL করে নিতে পারবেন।

টিনিইউআরএল দিয়ে ইউআরএল ছোট কেন করা হয়। হ্যা বন্ধুরা Tinyurl.com দিয়ে শর্ট ইউআরএল করে ওয়েবসাইটের লিংক ইন্টারনেট এর বিভিন্ন জায়ায় প্রচার করতে পারবেন।

এছাড়া বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক, টুইটার ইত্যাদি প্লার্টফর্ম গুলোতে। এখন প্রশ্ন হতে পারে যে, লিংক ছোট করে সোশ্যাল মিডিয়ায় দিয়ে কি হবে।

হ্যা বন্ধুরা টিনিইউআরএল ব্যবহার করে লিংক ছোট করে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করলে আপনার সাইটে অনেক ভিজিটর আসবে। প্রতিটি ওয়েবসাইটের প্রাণ হলো ভিজিটর। আপনার সাইটে যত ভিজিটর আসবে তত বেশি আপনার ইনকাম হবে। তাই টিনিইউআরএল এতটা গুরুত্বপূর্ণ।

০৩. bitly.com |প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইট

বর্তমানে যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন তারা এই ওয়েবাসইটের সাথে অনেক পরিচিত। বিটলি হলো একটি ওয়েবসাইটের জনপ্রিয় URL Shortening যার সাহায্যে ওয়েবসাইটের যে কোনো বড় URL কে ছোট URL  করা যায়।

বিটলি দিয়ে ইউআরএল ছোট কেন করা হয়। হ্যা বন্ধুরা উক্ত Tinyurl.com এর মাধ্যমে যে ভাবে বড় ইউআরএল ছোট করা হয় সেভোবে বিটলি দিয়ে শর্ট ইউআরএল করে বিভিন্ন ওয়েবসাইটের লিংক ইন্টারনেটে প্রচার হয়।

আপনি যদি বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া যেমন- ফেসবুক, টুইটার ইত্যাদি প্লার্টফর্ম গুলোতে লিংক শেয়ার করতে চান? তাহলে আপনাকে বিটলি’র মাধ্যমে শর্ট লিংক তৈরি করতে হবে। আপনার প্রশ্ন জাগতে পারে যে, লিংক ছোট করে সোশ্যাল মিডিয়ায় দিয়ে কি হবে।

লিংক ছোট করে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করার ফলে আপনার ওয়েবসাইটে অনেক ভিজিটর আসবে। প্রতিটি ওয়েবসাইটের প্রাণ হলো ভিজিটর। আপনার ওয়েবসাইটে যত ভিজিটর আসবে তত বেশি আপনার টাকা আয় হবে।

০৪। Grammarly.com | প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইট

বর্তমানে কোটি কোটি মানুষ অনলাইনে ব্লগিং করে থাকে।  তাই ব্লগিং করার জন্য গ্রামারলি একটি গুরুত্বপূর্ণ ওয়েবসাইট। Grammarly.com ওয়েবসাট এর কাজ হলো- মনে করুন আপনার একটি ইংরেজি ব্লগ/ওয়েবসাইট আছে।

সেই ওয়েবসাইটে অনেক আর্টিকেল/কন্টেন্ট লিখে থাকেন তখন আপনাদের ব্লগ পোস্ট এর মধ্যে ভুল বানান গুলো সঠিক করার কাজ করে থাকে।

আপনি এটি অনলাইনের মাধ্যমে ফ্রিতেই ব্যবহার করতে পারবেন। তার জন্য গুগলে গিয়ে Grammarly.com লিখে সার্চ করলেই চলে আসবে।

০৫। Google Translate | প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইট

বর্তমানে যারা ব্লগিং বা ওয়েবসাইট নিয়ে কাজ করেন তারা এই সাইটটির সাথে অনেক সম্পর্ক যুক্ত। কারণ গুগল ট্রান্সলেট ব্যবহার করে ভাষা অনুবাদ করার জন্য যায়। আপনি যদি একটি ইংরেজি ব্লগের লেখা বাংলাতে করতে চান কিংবা বাংলা ব্লগের লেখা ইংরেজি করতে চান তাহলে গুগল ট্রান্সলেট এর ভুমিকা অনেক। নিচে দেওয়া ছবির মতো দেখুন।

আমাদের এই ব্লগের বাংলা লেখা গুলো গুগল ট্রান্সলেট ব্যবহার করে ইংরেজি করা হয়েছে। আশা করি উপরের ছবিটি দেখে বুঝতে পারবেন। এভাবেই প্রায় ১২০+ টি ভাষার ট্রান্সলেট করতে পারবেন। যারা বাংলাদেশে কাজ করে থাকে তাদের জন্য মাত্র দুইটি ভাষা প্রয়োজন হয় বাংলা ও ইংরেজি।

০৬। FileHippo.com | প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইট

আপনার যদি একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ থাকে তার জন্য অবশ্যই সফটওয়্যর প্রয়োজন হয়। তাই আপনি এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কম্পিউটার সফটওয়্যার একদম বিনামূল্যে ডাউনলো করতে পারবেন। এই কারণে বর্তমানে FileHippo.com অনেক জনপ্রিয় একটি ওয়েবসাইট।

এই ওয়েবসাইট থেকে আপনি কম্পিউটারের জন্য- মাইক্রোসফট অফিস, এন্টিভাইরাস, কম্পিউটারের যাবতীয় সফটওয়্যার সমূহ। আপনি যদি কম্পিউটারের জন্য সফটওয়্যার ডাউনলোড করতে চান তবে এই ওয়েবসাইটটি ভিজিট করতে পারেন।

০৭। Wikipedia.org | প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইটে

আপনি যদি Wikipedia ওয়েবসাইট ব্যবহার করেন তবে এখানে আপনি যদি কোন বিষয় নিয়ে রিসার্চ করেন বা কোন বিষয় নিয়ে গভীর তথ্য গুলো জানতে চান তা আপনি এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানতে পারবেন।

এই ওয়েবসাইট টি আপনার জন্য একটি অসাধারণ নির্ভূল তথ্য প্রদান করে থাকে। যেমন বিশ্বের যে কোন খেলা থেকে  শুরু করে ওয়েবাসইট, বিজ্ঞান, সাহিত্য, বিনোদন সমস্ত কিছুর তথ্য সঠিক ভাবে দিয়ে থাকে।

০৮। Google Drive | প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইটে

গুগল ড্রাইভ হলো গুগলের একটি ফ্রি স্টোরেজ সার্ভিস। গুগল ড্রাইভ আপনার কম্পিউটার বা মোবাইলের ফাইল গুলোকে সার্ভারে আপলোড করার সুবিধা প্রদান করে থাকে।

বর্তমানে যত সব কোম্পানি ফ্রি স্টোরেজ এর সুবিধা দিয়ে থাকে। যেমন : আপনার যদি একটি জিমেইল একাউন্ট থাকে সেখানে ১৫ জিবি ফ্রি স্টোরেজ দিয়ে থাকে। ঠিক তেমনি একটি  ওয়েব সাইট Google Drive. গুগল ড্রাইভ এর সাইটেও আপনাকে ১৫ জিবি স্টোরে দেওয়া হয়। সেখানে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় যাবতীয় ফাইল ও ফোল্ডার সংরক্ষণ করতে পাবেন।

০৯। Quora | প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইটে

আমরা জানি যে, Quora ওয়েবসাইট একটি প্রশ্ন উত্তর ওয়েবসাইট। এখানে কোটি কোটি মানুষ তাদের প্রশ্ন করে থাকে এবং উত্তর সংগ্রহ করে থাকে। একটি বর্তমানে অনেক জনপ্রিয় লোকদের কাছে। আপনার যদি কোন বিষয় জানার থাকে তবে সরাসরি উত্তর পাওয়ার জন্য আপনাকে একটি প্রশ্ন করতে হবে।

আপনি যদি এখানে প্রশ্ন করতে চান এবং উত্তর জানতে চান? তার জন্য এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে একটি একাউন্ট রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে। তার পরে আপনি ই-মেইল এর মাধ্যমে সকল প্রশ্নের উত্তর জানতে পারবেন।

১০। Befunky.com | প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইটে

আপনি যদি অনলাইন এর মাধ্যমে কোন ছবি ডিজাইন বা এডিটিং করতে চান তাহলে এটি প্রয়োজন হয়। আর আপনারা যদি ফটোশপে অদক্ষ হয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে অনলাইন ফটো এডিটর হিসাবে befunky.com ব্যবহার করতে পারেন একটি বর্তমানে দারুন একটি ওয়েবসাইট। এখানে ফটো এডিট থেকে শুরু করে গ্রাফিক্স ডিজাইন এর যাবতীয় কাজ করা সম্ভব।

আপনি যদি ছবি ও গ্রাফিক্স ডিজাইন এক সাথে করতে চান তবে এই ওয়েবসাইটের প্রবেশ করে আপনি আপনার চাহিদা পুরণ করতে পারবেন।

১১। Google Map | প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইটে

বর্তমানে গুগল ম্যাপ একটি গুরুত্বপূর্ণ ওয়েবসাইট। যা গুগলের একটি অত্যন্ত প্রয়োজনীয় ন্যাভিগেশন। যা আমরা নিত্যদিনে ব্যবহার করে থাকি। এর মাধ্যমে আমরা বিশ্বের যে কোন জায়গার নাম জানতে পারি এবং ঠিকানা জানতে পারি।

বর্তমানে গুগল ম্যাপ ১৫৪ মিলিয়নের বেশি ব্যবহারকারী রয়েছে। আপনি যদি কোন জায়গার ঠিকানা জানতে চান তা সহজেই গুগল ম্যাপস ব্যবহার করে সেই জায়াগার ঠিকান খুজে বের করতে পারবেন।

আমরা জানি উক্ত গুগল ম্যাপস কম্পিউটার ও মোবাইলের মাধ্যমে ব্যবহার করা যায়। যে কোন ঠিকানা-লোকেশন বের কারা জন্য গুগল ম্যাপ লোকেশন অপশনটি চালু করে রাখতে হবে।

১২। Google Analytics | প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইটে

গুগলের একটি জনপ্রিয় প্রোডাক্ট হলো গুগল এনালিটিক্স। আমাদের ওয়েবাসাইট এর জন্য এনালিটিক্স ব্যবহার ও কার্যকারিতা জানি না। আমরা অনেকেই ব্লগার ওয়েবাসইট ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু এই ব্লগ বা ওয়েবসাইটের সঠিক ভিজিটর জানার জন্য গুগল এনালিটিক্স একটি জনপ্রিয় মাধ্যম।

Google Analytics ওয়েবসাইট ব্যবহার করে যে কোন ওয়েবসাইট এর সঠিক ভিজিটর এর সংখ্যা জানতে পারবেন। তাই এই ওয়েবসাইটি আপনি ব্যবহার করতে পারেন।

১৩। Google Search Console| প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইটে

বর্তমানে আমরা যে সকল ওয়েবসাইট বা ব্লগ ব্যবহার করে থাকি। তাদের সকলের জন্য অতন্ত্য প্রয়োজন গুগল সার্চ কনসল। আপনি যদি কোন ওয়েবসাইটের মালিক হয়ে থাকেন তাহলে গুগল সার্চ কনসল অনেক ভুমিকা পালন করে থাকে।

আপনি যদি গুগল সার্চ কনসলে আপনার ওয়েবসাইট সাবমিট করেন তাহলে আপনার সাইট দ্রুত গুগলের পাতায় স্থান পাবে। এখানে আপনি দেখতে পারবেন আপনার সাইটে কি কি বিষয় নিয়ে সার্চ হয় এবং ওয়েবসাইটে দৈনিক, ৭ দিন, ২৮ দিন এবং তিন মাসে কতটি ক্লিক পরে ইত্যাদি বিষয়াদি।

তাই যাদের ওয়েবসাইট রয়েছে তাদের ব্লগ পোস্ট গুগলে ইনড্রেক্স করার জন্য Google Search Console অন্যতম একটি ওয়েবসাইট।

১৪। Docfly.com| প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইটে

আপনি যদি পিডিএফ ফাইল ফ্রিতে এডিট করতে চান? তাবে কোন প্রকার সফটওয়্যার ব্যবহার না করেই পিডিএফ ফাইল এডিটিং করতে পারবেন।

আপনার প্রশ্ন জাগতে পারে যে, সফটওয়্যার ছাড়া আবার এডিট করবো কিভাবে। পিডিএফ ফাইল এডিট করার জন্য আপনি অনলাইনে Docfly.com ওয়েবসাইট ব্যবহার করেই যে কোন পিডিএফ ফাইল এডিট করতে পারবেন।

১৪। Tinypng.com| প্রয়োজনীয় এবং কাজের ওয়েবসাইটে

বর্তমানে যারা ওয়েবসাইট ব্যবহার করে থাকে তাদের জন্য এই Tinypng.com ওয়েবসাইট টি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। যেমন- আপনার ওয়েবসাইটের কন্টেন্ট লেখার সময় মাঝে মাঝে ছবি যুক্ত করতে হয়।

সেই ছবি অনেক MB হয়ে থাকে। তাই কোন ওয়েবসাইটের পোস্ট পাতলা রাখার জন্য টিনিপিএনজি  ওয়েবাসইটের মাধ্যমৈ অপটিমাইজেশন করে ইমেজ সাইজ এর MB কমাতে সাহায্য করে।

এখানে আপনি যে কোন PNG ও JPEG ছবি যুক্ত করতে পারবেন। আপনার ছবি যদি মনে করুন ৫০০ কেবি থাকে সেটি Tinypng.com এর সাহায্যে ৩০ কেবি করে নিতে পারাবেন।

এর ফলে আপনার ছবিতে কোন সমস্যা হবে না। শুধু আপনার ছবিটি MB, KB কমাতে সাহায্য করবে। তাই আপনার ওয়েবসাইটের জন্য টিনিপিএনজি ওয়েবসাইটটি ব্যবহার করতে পারেন।

শেষ কথাঃ

আমাদের এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানতে পারলেন ১৫ টি প্রয়োজনীয় ওয়েবসাইটের নাম ও কার্যকারিতা। আশা করি উক্ত ওয়েবসাইট ব্যবহার করে আপনি অনেক ভালো কিছু করতে পারবেন।

আপনি যদি আমাদের এই পোস্ট পড়ে কিছুটা হলেও উপকৃত হন তবে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না। তাদেরকেও এ বিষয়ে জানাতে সহযোগিতা করুন। আমাদের সাথে সময় দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ।

Leave a Comment